তৃনমূল সাংগঠনিক সভা: মুখ্যমন্ত্রীর ভূয়সী প্রশংসায় ফিরহাদ হাকিম, দলের দুর্নীতিবাজদের দল ছাড়ার হুমকি সাবিনার

0 35

- Advertisement -

মালদা,  ১ এপ্রিল:  আমতায় আনিস কান্ড এবং রামপুরহাটের ঘটনা না হলেই ভালো হতো। একটা গ্রামে কি ঘটছে সেটা তৃণমূল নেতৃত্বের পক্ষে জানা সম্ভব নয়। কারণ, আমরা প্লানচেট জানি না, ভবিষ্যৎ বলতে পারব না। কিছু ঘটা মাত্রই সব টিভিওলারা ছুটে যাচ্ছে । কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমাদের দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির থাকছেন অসহায়দের পাশে – বৃহস্পতিবার রাতে পুরাতন মালদার তৃণমূলের সাংগঠনিক সভায় এমনভাবেই দলীয় কর্মী – নেতাদের সামনে আলোচনা করে মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসনীয় ভূমিকা তুলে ধরেন রাজ্যের পরিবহন দপ্তরের মন্ত্রী তথা মালদার পর্যবেক্ষক ফিরহাদ হাকিম। 

- Advertisement -

বৃহস্পতিবার রাতে  তৃণমূলের জেলার এই কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয় পুরাতন মালদার একটি বেসরকারি তিন তারা হোটেলে । সেখানে মূল বক্তা হিসেবে উপস্থিত হয়েছিলেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। ছিলেন রাজ্যের সেচ ও উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন, মালদা জেলা পরিষদের সভাধিপতি রফিকুল হাসান, তৃণমূলের জেলা সভাধিপতি তথা বিধায়ক বিধায়ক নিহার ঘোষ সহ ইংরেজবাজার এবং পুরাতন মালদা পুরসভার কাউন্সিলর, চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যানেরা। পাশাপাশি উপস্থিত হয়েছিলেন জেলার বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েতের দলীয় প্রধান, পঞ্চায়েত সদস্য, পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি, সদস্য, মালদা জেলা পরিষদের সদস্য সহ অন্যান্যরা।

তৃণমূলের এই সাংগঠনিক সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, আনিস কান্ড এবং রামপুরহাটের মতো ঘটনা কেউ সমর্থন করে না । এই ঘটনার পর তড়িঘড়ি মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সিট গঠন করে আইনগত ব্যবস্থা নিয়েছেন। কিন্তু হঠাৎ করে দেখা যাচ্ছে আমতা ও রামপুরহাটের ঘটনার পর কিছু টিভিওলারা হইচই শুরু করে দিচ্ছে। বিরোধীরা এ নিয়ে অনেক কটু কথা বলছে। কিন্তু মনে রাখবেন শেষ পর্যন্ত আপনাদের পাশে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি থাকবেন। কামদুনির ঘটনার সময় অনেক হইচই হয়েছিল। অনেক টিভিওলারা সেই সময় ঝাঁপিয়ে পড়েছিল । কিন্তু আজ সেই সব অসহায় মানুষদের কেউ কি খোঁজ নিয়েছেন। হ্যাঁ খোঁজ নিয়েছেন এবং পাশে থেকেছেন তিনি হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। কামদুনির ঘটনার পর অসহায় পরিবারগুলির পাশে থেকে তাদের কর্মসংস্থান এবং অন্নের জোগাড় সবটাই করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম আরো বলেন, আমরাই দেখিয়েছি অন্যায় করলে নিজেদের দলের ছেলেদের গ্রেপ্তার করা যায়।  বামফ্রন্টের জমানায় যা কোনোদিনই হয় নি । আমরা কোন ঘটনাকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করি না। 

পঞ্চায়েত নির্বাচন ও লোকসভা নির্বাচন দেরি থাকলেও সেই প্রসঙ্গে উল্লেখ করে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, গত বিধানসভা নির্বাচন এবং এবারের পুরো নির্বাচন মালদায় তৃণমূলের খুব ভালো ফল করেছে। তাই সামনের বছর পঞ্চায়েত নির্বাচনে সব গ্রাম পঞ্চায়েত , সবকটি পঞ্চায়েত সমিতি এবং জেলা পরিষদ তৃণমূলের চাই । আর  লোকসভায় এরাজ্যের ৪২ টি আসনের মধ্যে মালদার দুটি আসনও তৃণমূলের দখলে রাখতে হবে। 

এদিনের সাংগঠনিক সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে মন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন কড়া ভাষায় দলের একাংশ নেতাদের সতর্ক করে বলেন,  যারা তৃণমূল থেকে দুর্নীতির সাথে জড়াবেন তাদেরকে বলব আপনারা দল ছেড়ে চলে যেতে পারেন। পঞ্চায়েত স্তরে যারা ভালো কাজ করছেন দল অবশ্যই তাদেরকে পুরস্কৃত করবে এবং যোগ্য সম্মান দিবে। কিন্তু যারা দল থেকে দুর্নীতির সঙ্গে জড়াচ্ছেন তাদের মতো নেতাদের দরকার নেই। অন্যায় কে কখনোই প্রশ্রয় দেয় না তৃনমূল। তাই দুর্নীতিবাজ যারা আছেন তারা দল থেকে বেরিয়ে যেতে পারেন।

মন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন আরও বলেন , বেশ কিছুদিন ধরে লক্ষ্য করা যাচ্ছে কিছু ভুয়ো নাম দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের কোন কোন ক্ষেত্রে অপপ্রচার করা হচ্ছে। দলকে বিপাকে ফেলার জন্য কেউ কেউ ষড়যন্ত্রমূলক এই কাজ করছে। আমাদের একটি টিম রীতিমতো এব্যাপারে মনিটরিং করছে।  দলে থেকে যারা সোশ্যাল মিডিয়ায় দলের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করার ষড়যন্ত্র করবেন তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 

মন্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন বলেন,  দলকে ঠিক রাখতে গেলে কর্মীদের পাশে থাকতে হবে । মানুষের সমস্যার সমাধান করতে হবে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.