পাটনা থেকে দিল্লি যাতায়াত এখন সহজ,বিহারে ছয় লেনের সেতু উপহার নীতিন গড়করির

0 46

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ, ১৪মে: পাটনা থেকে দিল্লি যাত্রা এখন করা হবে এবং দেড় বছর আগে সহজ ছয় লেনের সেতুর আপ লেনে অপারেশন শুরু হয়েছিল। সেতুটি পাটনা থেকে দিল্লি পর্যন্ত সড়কপথে যাত্রার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

 

 

 

 

 

- Advertisement -

আজ ছয় লেনের সেতু উপহার পেতে চলেছে বিহার। ভোজপুর জেলার কৈলওয়ার এবং পাটনা জেলার বিহতার মধ্যে প্রফেসর আবদুল বারি সেতুর সমান্তরালে নির্মিত নতুন সেতুটি শুধু যানজটের সমস্যাই দূর করবে না, রাজ্যের রাজধানী পাটনা থেকে দেশের রাজধানী দিল্লিতে যাতায়াতও সহজ করবে৷ সেতুটির দৈর্ঘ্য দেড় কিলোমিটার এবং প্রস্থ ৩০ মিটার। ১০ ডিসেম্বর ২০২০ সালে সেতুটির তিন লেনের উজানে অংশটি উদ্বোধন করা হয়েছিল। শুধুমাত্র উজানটি চালু হওয়ায় সন নদী পারাপারের ক্ষেত্রে জ্যামের সমস্যা অনেকাংশে কমে গেছে। আজ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করিও এই সেতুর বাকি তিন লেনের উদ্বোধন করবেন।

 

 

 

 

 

চার লেন সড়ক করে ছয় লেনের এই সেতুটি বিহতার দিক থেকে সংযোগ দেওয়া হয়েছে। একই সময়ে, পশ্চিম অংশে এটি আরা-বক্সার চার লেনের সাথে সংযুক্ত। শনিবার উদ্বোধন হওয়া সেতুর অবশিষ্ট লেন নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ২৬৬ কোটি টাকা। তবে, উভয় লেন এবং উভয় পাশে অ্যাপ্রোচ রোডের সমন্বয়ে সেতুটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে ৮২৫ কোটি টাকা।

 

 

 

 

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে জমকালো করতে, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের জন্য কয়েলভার তারা মণি ভগবান সাও প্লাস টু স্কুলের ক্রীড়া মাঠ সাজানো হয়েছে। ২০ হাজার বর্গফুটে ডেকোরেশন, স্টেজ ও শেড তৈরি করা হয়েছে। ২৭ জুলাই ২০১৭-এ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কাম আরা সাংসদ আর কে সিং সেতু নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। পাঁচ বছরে সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। সেতুর মাধ্যমে আগামী দিনে দিল্লি থেকে পাটনা যাতায়াতও সহজ হবে।
পাটনার দানাপুর থেকে বিহতা পর্যন্ত এলিভেটেড রোড নির্মাণের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। একই সময়ে, আরা-বক্সার চার লেন এবং বক্সারে গঙ্গা নদীর উপর বীর কুনওয়ার সিং সেতুর সমান্তরাল নতুন সেতুর নির্মাণ কাজ বছরের শেষ নাগাদ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। গাজিপুর থেকে পূর্বাঞ্চল এক্সপ্রেসওয়ের সংযোগ বক্সার থেকে ২০ কিলোমিটার দূরত্বে উপলব্ধ। বক্সার থেকে পূর্বাচল এক্সপ্রেসওয়ের মধ্যে ২০ কিলোমিটার রাস্তাও বালিয়া হয়ে চার লেনের করা হচ্ছে। এই সমস্ত নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার পরে, পাটনা থেকে দিল্লি সড়কপথে ১২ ঘন্টার মধ্যে সহজেই যাত্রা শেষ করা যাবে।

 

 

 

 

 

 

 

উত্তর দিকে বিদ্যমান আব্দুলবাড়ী সেতুর সমান্তরালে নির্মাণ করা হয়েছে নতুন সেতুটি। নতুন সেতুটি ৬ লেনের যা ৩০ মিটার চওড়া এবং ১.৫২৮ কিলোমিটার। এটির লেন প্রস্থ ১৬ মিটার। ৮২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সেতু ও অ্যাপ্রোচ রোড তৈরি করা হয়েছে। সময়মতো সেতু নির্মাণ শেষ করতে অনেক চ্যালেঞ্জ ছিল। ২০২০ সালে করোনার আগমনের কারণে নির্মাণ কাজে কিছুটা ব্যাঘাত ঘটলেও এক লেন চালু করে জ্যামের সমস্যা থেকে মুক্তির চেষ্টা করা হয়েছে। নবনির্মিত কৈলভার সেতুটি ৩৮টি পিলারের উপর স্থাপিত, সেতুর উভয় পাশে পথচারীদের জন্যও ব্যবস্থা করা হয়েছে। পুরানো রেল-কাম-সড়ক সেতুটি ১৫৪ বছর ধরে পাটনার সাথে ভোজপুরের সংযোগ বজায় রেখেছিল। ১৮৬৮ সালে, ব্রিটিশরা সোন নদীর উপর একটি রেল-কাম-সড়ক সেতু তৈরি করে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.