বাড়ির ভীত খনন করতে গিয়ে উদ্ধার গুপ্তধন

0 54

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ, ৭মে: মধ্যপ্রদেশের মানা গ্রামে একটি বাড়ির ভিত খননের সময় রৌপ্য মুদ্রা ভর্তি কলস বের হলে আশপাশের লোকজন লুটপাট শুরু করে দেয়। খননকালে জমির মালিক ঘটনাস্থলে না থাকায় গ্রামবাসী মুদ্রাগুলো নিয়ে যায়। পরে বাড়িওয়ালা বাড়িতে পৌঁছালে তিনি খবর পেয়ে পুলিশকে খবর দেন।

 

 

 

- Advertisement -

জেলার মানা গ্রামে একটি বাড়ির ভিত্তি খননকালে রৌপ্য মুদ্রা ভর্তি একটি পাত্র বের হলে আশেপাশের লোকজনের মধ্যে লুটপাট শুরু হয়। খননকালে জমির মালিক ঘটনাস্থলে না থাকায় গ্রামবাসী মুদ্রাগুলো নিয়ে যায়। পরে বাড়িওয়ালা বাড়িতে পৌঁছালে তিনি খবর পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে, তহসিলদার সহ সুসনার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ৩৭০ গ্রাম ওজনের ৩২ টি মুদ্রা উদ্ধার করে। বলা হচ্ছে, মুদ্রায় ১৯০৩, ১৯১২ এবং ১৯১৬ সাল লেখা আছে।

 

 

 

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, ঘটনাটি আগর মালওয়া জেলার মানা গ্রামের। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বলাচাঁদের ছেলে শিবজির বাড়ির ভিত্তি তৈরির জন্য জেসিবি দিয়ে গর্ত খনন করা হচ্ছিল। এ সময় রৌপ্য মুদ্রায় ভরা একটি কলস বের হয়। রৌপ্য মুদ্রা দেখে সেখানে হুড়োহুড়ি শুরু হয় এবং কলসিতে রাখা মুদ্রা লুট করে অনেক গ্রামবাসী পালিয়ে যায়। এ সময় বাড়িওয়ালা বলচাঁদ ঢোল বাজাতে কোথাও গিয়েছিলেন। বাড়িওয়ালা তার ফিরে আসার খবর পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। খবর পেয়ে তহসিলদার এবং সুসনার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রায় ৩৭০ গ্রাম ওজনের ৩২টি মুদ্রা বাজেয়াপ্ত করে। পুলিশ ও প্রশাসন গ্রামবাসীদের কাছ থেকে অন্যান্য মুদ্রা সংক্রান্ত তথ্যও সংগ্রহ করছে, যাতে সেগুলি ফেরত নেওয়া যায়।

 

 

 

মুদ্রায় ১৯০৩, ১৯১২ এবং ১৯১৬ সাল লেখা আছে। তাদের গায়ে খোদাই করা তারিখ অনুসারে মুদ্রাগুলো উনিশ শতকের হওয়ার বিষয়টি সামনে এসেছে। বলা হচ্ছে এই পাত্রটি বহু বছর ধরে মাটিতে চাপা পড়ে ছিল, তারপরও এর কয়েনগুলো খুব চকচকে হয়ে উঠেছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে মুদ্রাগুলো পরীক্ষা করা হচ্ছে। প্রথমে খননকালে কয়েন ভর্তি একটি পাত্র দেখে বালচাঁদ ও তার প্রতিবেশীর মধ্যে ঝগড়া হয়। যে জমি খোদাই করতে গিয়ে মুদ্রাগুলি উদ্ধার হয় সেই জমিকে প্রতিবেশী তার নিজের বলে জানাতে শুরু করে। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.