বিশ্বের যে শহরটিতে আবর্জনা নেই, সম্পূর্ণ শূন্য বর্জ্য শহর হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে

0 71

- Advertisement -

 

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ, ৪মে: জিরো-ওয়েস্ট টাউন হল বিশ্বের শূন্য-বর্জ্য শহর। এখানে প্রায় ৮০% বর্জ্য পদ্ধতিগতভাবে পুনর্ব্যবহার করা হয় এবং সকলকে শেখানো হয় কীভাবে তারাও এই মহতী উদ্যোগকে আপন করে নিতে পারবে। এর ফলে এখানে বসবাসকারী মানুষের জীবনযাত্রা সম্পূর্ণ বদলে গেছে।

 

আমরা নিশ্চয়ই অনেকেই পরিচ্ছন্ন ও আধুনিক শহরের কথা শুনেছি। কিন্তু আজ আমরা এমন একটি শহর সম্পর্কে জানতে যাচ্ছি যেটি সম্পূর্ণ শূন্য বর্জ্য শহর হতে চলেছে। এই শহরে যা কিছু বর্জ্য তৈরি হয় তা সম্পূর্ণরূপে পুনর্ব্যবহৃত হয়। এইভাবে, এই শহরটি ২০৩০ সালের মধ্যে শূন্য বর্জ্য শহরে পরিণত হওয়ার লক্ষ্যমাত্রার ৮০% পূরণ করেছে। আসুন আমরা এই শহর সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নিই ।

 

 

জিরো ওয়েস্ট টাউন নামে পরিচিত এই শহরটি জাপানের শিকোকু দ্বীপের পাহাড়ে অবস্থিত। এর নাম কামিকাট্সু। ২০০৩ সালে, কামিকাট্সু জাপানের প্রথম শহর হিসেবে শূন্য বর্জ্য ঘোষণা করে। এখানে প্রায় ১৫০০ লোক বাস করে। এখানকার মানুষ ময়লা আবর্জনা না ছড়িয়ে জিরো ওয়েস্ট লাইফস্টাইলকে খুব গুরুত্ব সহকারে অবলম্বন করছে এবং শহরকে কার্বনমুক্ত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এই শহরের মানুষ। এখানে বর্জ্য পদার্থ গুলিকে পদ্ধতিগতভাবে আবার রিসাইকেল করা হয়।

 

 

কিন্তু কার্বন এবং বর্জ্য যে কোনও শহরকে সম্পূর্ণরূপে মুক্ত করার লক্ষ্য সহজ নয়। এই শহরের অর্ধেকেরও বেশি জনসংখ্যার বয়স ৬৫ বছরের উপরে। এমন পরিস্থিতিতে এখানকার গ্রামীণ জনগোষ্ঠী দ্রুত সংকুচিত হচ্ছে। কিন্তু শহরের প্রশাসন মানুষকে বর্জ্য পুনর্ব্যবহারযোগ্য উপকরণ ব্যবহারে উৎসাহিত করার চেষ্টা করছে, যা বর্জ্য ও জগাখিচুড়ি কমাতে সাহায্য করবে। কামিকাটসু এবং এর বাসিন্দাদের আরও টেকসই জীবনধারা রয়েছে। যা থেকে অনেক বড়-বড় শহর অনেক কিছু শিখতে পারে।

 

 

জিরো ওয়েস্ট সেন্টার হল শহরের একটি রিসাইক্লিং সুবিধা যেখানে লোকেরা তাদের বর্জ্য ৪৫টি বিভাগে বাছাই করতে পারে। শুধুমাত্র একটি কাগজ জাতীয় নোংরা সাজানোর নয়টি উপায় আছে। শহরের মানুষ ময়লা-আবর্জনার স্তূপে ফেলার আগে পরিষ্কার ও শুকিয়ে নেয় যাতে তা সঠিকভাবে পুনর্ব্যবহার করা যায়। এর পাশাপাশি এখানকার মানুষ শুধু এমন জিনিস ব্যবহার করে, যেগুলোকে রিসাইকেল করে আবার ব্যবহার করা যায়। মানুষ আবর্জনা পোড়ানোর পরিবর্তে পুনর্ব্যবহার করে প্রচুর অর্থ সাশ্রয় করছে।

 

 

জিরো ওয়েস্ট সেন্টারের সাথে একটি থ্রিফ্ট দোকান আছে, যাকে কুরু-কুরু দোকান বলে। এখানে লোকেরা এমন জিনিসগুলি ছেড়ে যেতে পারে যা তারা আর ব্যবহার করতে চায় না। অন্যরা বিনামূল্যে সেগুলি নিতে পারেন। তাদের যা করতে হবে তা হল দোকান থেকে নেওয়া জিনিসটির ওজন করা এবং একটি রেজিস্টারে ওজন লিখতে হবে যাতে দোকানটি আইটেমগুলির পরিমাণের উপর নজর রাখতে পারে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.