চুরি করে দুধ খেয়ে পালালো বিড়াল, কি আসলে কীসের ইঙ্গিত জানেন?

0 39

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ, ৫মে: আমাদের সমাজে এমন অনেক ধরনের বিশ্বাস প্রচলিত আছে যেগুলোতে আমাদের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনা ও বিষয়গুলোকে শুভ ও অশুভ লক্ষণের সাথে যুক্ত হিসেবে দেখা হয়। এই জনপ্রিয় বিশ্বাসগুলির মধ্যে একটি হল বিড়ালের পথ কাটা। সাধারণত বিশ্বাস করা হয় যে কোথাও যাওয়ার সময় যদি কোনও বিড়াল রাস্তা পার হয়ে যায় তবে তা অশুভ।

 

 

 

- Advertisement -

এই বিশ্বাসের কারণে, আপনারা নিশ্চয়ই দেখেছেন যে অনেকে বিড়ালের পথ অতিক্রম করার পরে কিছু সময়ের জন্য সেখানে থামেন এবং তাদের ইষ্ট ও আরাধ্য দেবতার নাম নিয়ে এগিয়ে যান। এছাড়াও জ্যোতিষশাস্ত্রে বিড়ালকে রাহুর সওয়ারী হিসেবে ধরা হয়। কেউ আবার থুতু দিয়ে সেই বেড়ালের কাটা পথ নষ্ট করে দেন। তাঁদের কাছে এটাই স্বাভাবিক বিষয়। আর যুগ-যুগ ধরে এই বিষয়গুলি চলে আসছে। তবে পিছনে কোনও বৈজ্ঞানিক কারণ রয়েছে কিনা অবশ্য অনেকেই জানেন না। চলুন জেনে নিই বিড়াল সম্পর্কিত কিছু অনুরূপ বিশ্বাস এবং এর পেছনের সত্য সম্পর্কে।

 

 

বিড়ালের দুধ পান করা সম্পদের আগমনের লক্ষন

 

 

প্রচলিত বিশ্বাস যে দীপাবলির রাতে বাড়িতে বিড়ালের আগমন মা লক্ষ্মীর আশীর্বাদ নিয়ে আসে। বাড়িতে ও পরিবারে সম্পদের আগমনের লক্ষণ। অন্যদিকে, আপনাদের বাড়িতে যদি কোনও বিড়াল সন্তানের জন্ম দেয় তবে তাও শুভ বলে মনে করা হয়। তা ছাড়া যদি বিড়াল ঘরে ঢুকে দুধ পান করে, তাহলে তা নিয়ে চিন্তা বা খারাপ লাগার কোনো দরকার নেই, কারণ এটাকে আরও ভালো আর্থিক অবস্থার লক্ষণ বলে মনে করা হয়।

 

 

 

অনেকের মনে এই বিশ্বাস রয়েছে যে কোথাও যাওয়ার সময় যদি একটি বিড়াল সামনে দিয়ে যায় বা রাস্তা পার হয়ে যায় তবে তা শুভ নয় এবং এটি তাদের কাজ নষ্ট করতে পারে। অতএব, যখন এটি ঘটে, লোকেরা সেখানে কিছুক্ষণের জন্য থামে এবং তারপর ঈশ্বরের নাম নিয়ে এগিয়ে যায়। তবে আমরা আপনাকে বলে রাখি যে বিড়ালের পথ কাটা সমস্ত পরিস্থিতিতে অশুভ নয়। বিড়ালটি আপনার বাম পাশ অতিক্রম করে ডানদিকে চলে গেলেই এটি অশুভ লক্ষণ হিসেবে বিবেচিত হয়।

 

 

 

এছাড়াও, বাড়িতে বিড়ালদের মধ্যে মারামারি কিছু আর্থিক সমস্যার লক্ষণ হিসাবে বিবেচিত হয়। অন্যদিকে, জ্যোতিষশাস্ত্র অনুসারে, যাদের রাহু গ্রহ তাদের কুণ্ডলীতে দুর্বল তাদের খারাপ প্রভাব এড়াতে একটি বিড়াল রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়।

Leave A Reply

Your email address will not be published.