খুনের জল্পনা উড়িয়ে সামনে এল ময়নাতদন্তের রিপোর্ট, আত্মহত্যার জল্পনাই প্রবল

0 66

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ,১০ মে: বিজেপি কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার মৃত্যু তদন্তের মামলায় এল বড়সড় রদবদল। এদিন ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেশ করা হয় কলকাতা হাইকোর্টে। রিপোর্টে লেখা আছে, খুন করার পর ঝুলিয়ে দেওয়া হয়নি অর্জুনের দেহ, বরং গলায় ফাঁস লেগে মৃত্যু হয়েছে তাঁর।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য শুক্রবার সকালে চিৎপুরের রেল কোয়ার্টার থেকে উদ্ধার হয় অর্জুন চৌরাশিয়ার ঝুলন্ত মৃতদেহ। অর্জুন এলাকার সক্রিয় বিজেপি কর্মী ছিলেন।কলকাতা পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সহ-সভাপতি ছিলেন তিনি।পরিবারের তরফ থেকে জানানো হয় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা নাগাদ কাজে বেরচ্ছি বলে বাড়ি থেকে বের হন অর্জুন। সন্ধ্যা গড়িয়ে রাত হয়ে গেলেও অর্জুন বাড়ি ফেরেননি। বাড়ির লোক যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাও সম্ভব হয়ে ওঠেনি। সম্ভাব্য সমস্ত জায়গায় খোঁজ নেওয়া হয় কোথাও কোনো খবর না মেলায় থানায় মিসিং ডায়েরি করার পরিকল্পনা করে পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু তার আগেই স্থানীয় বাসিন্দারা চিৎপুরের পরিত্যক্ত রেল কোয়ার্টারে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় অর্জুন চৌরাশিয়ার দেহ শনাক্ত করে। পুলিশে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ এসে দেহ ময়নাতদন্তে পাঠায়।

বিজেপি নেতার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার ঘিরে মেতে ওঠেন রাজ্য রাজনীতি। রহস্য মৃত্যু খুন নাকি আত্মহত্যা তা নিয়ে শুরু হয় শাসক-বিরোধী চাপানউতোর। মামলা কলকাতা হাইকোর্ট অবধি গড়ায়। মামলায় সিট গঠন করে তদন্তের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। আর এ দিন সামনে এলো ময়নাতদন্তের রিপোর্ট।

আর ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে আত্মহত্যাই করেছেন অর্জুন। পরিবার এবং বিজেপির তরফ থেকে এই দাবি মানা হয়নি। তারা অর্জুনের মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি করেছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.