বৃদ্ধ চাষীর জমি দখলের বিষয়ে তদারকি করতে গেলেন দলনেতা দ্রোণাচার্য ব্যানার্জি, আশ্বাস দিলেন ন্যায় বিচারের

0 30

- Advertisement -

মালদা, ১৬ এপ্রিল :  এলাকার এক বৃদ্ধের মূল্যবান জমি দখলের অভিযোগ উঠেছিল স্থানীয় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। আর এই ঘটনার পরই চাষির বাড়িতে সমস্ত বিষয় তদারকি করতে গেলেন হরিশচন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলের দলনেতা দ্রোণাচার্য ব্যানার্জি।

- Advertisement -

শনিবার সকালে তিনি ওই বৃদ্ধ চাষির দখল করা জমি পুনরুদ্ধারে নামেন। দখল হয়ে যাওয়া ওই জমির খুঁটি উপরে তুলে দেন তৃণমূলের দল-নেতা তথা পঞ্চায়েত সদস্য দ্রোণাচার্য ব্যানার্জি। 

সেখানে দাঁড়িয়ে হরিশ্চন্দ্রপুরের তৃণমূলের দলনেতা দ্রোণাচার্য ব্যানার্জি বলেন,  দলটা মাফিয়াতে ভরে গিয়েছে। “মা মাটি মানুষের সরকার” কিন্তু এখন মাটি দখল হয়ে যাচ্ছে, মানুষ জেলে। সমাজ বিরোধীরা তৃণমূল দলটাকে কলঙ্কিত করে ফেলছে। আমরা এখানে দেখতে পেলাম এক সাধারণ দরিদ্র কৃষকের জমি এলাকারই কিছু গুন্ডা বাহিনী প্রশাসনের নাকের ডগায় দিবালোকে জমি দখল করে নিল। এই ধরনের ঘটনা বরদাস্ত করা যাবে না। আমাদের দলের সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার বলেছেন দলের আদর্শ মা মাটি মানুষ কে ভালো রাখা,নিরাপত্তা দেওয়া। কিন্তু তার পরিবর্তে আমরা দেখতে পারছি এলাকারই কিছু দুষ্কৃতী মাফিয়া তারা দলের নাম ভাঙ্গিয়ে এলাকায় এসব অপকর্ম করে বেড়াচ্ছে।

হরিশ্চন্দ্রপুরের তৃণমূলের ওই দলনেতা আরো বলেন, এই জমি দখলের বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলব। থানার আইসি কেও ঘটনাতে নজর দিতে অনুরোধ করবো। প্রয়োজনে দলের ব্লক এবং জেলা সভাপতি ঘটনার কথা আমি জানাবো।

এদিকে খোদ তৃণমূলের বিরুদ্ধে হরিশ্চন্দ্রপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূলেরই দলনেতার এই ধরনের মন্তব্য ঘিরে এলাকায় চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার পিপলা গ্রামে বিহার গামী ৮১ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশে একটি জমিকে নিয়ে গণ্ডগোলের সূত্রপাত হয়। ওই এলাকায় অঞ্চল দাস বলে এক বৃদ্ধ চাষির জমি রয়েছে। এলাকার তৃণমূল কর্মী বলে পরিচিত জগন্নাথ সরকার নামে এক ব্যক্তি গুন্ডা বাহিনী লেলিয়ে দিয়ে ওই বৃদ্ধর জমি দখল করতে চায় বলে অভিযোগ। এই নিয়ে ব্যাপক অশান্তি সৃষ্টি হয়। জমি দখল করতে গিয়ে ব্যাপক মারধর করা হয় ওই বৃদ্ধকে। পুলিশ দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করে উল্টে বৃদ্ধকেই গ্রেফতার করে। বৃদ্ধের পরিবারের অভিযোগ পুলিশ সম্পূর্ণ ঘটনার মদত দিচ্ছে। ওই বৃদ্ধের জমি দখলে এলাকার তৃণমূল আশ্রিত গুণ্ডাবাহিনীর মদত রয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। যদিও জগন্নাথ সরকার এব্যাপারে কোনো মন্তব্য করতে চাননি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.