চায়ের চুমুকে ‘কবি মমতা’ র কবিতায় মজলেন শ্রীলেখা, ভাইরাল ভিডিও

0 66

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ, ১০ মে: গতকাল ছিল ১৬২ তম রবীন্দ্রজয়ন্তী। রাজ্য সরকার তথা মমতা ব্যানার্জির তরফ থেকে রবীন্দ্র জয়ন্তী উদযাপন করা হয় নবান্নে। সেখানে বাংলা আকাদেমি পুরস্কার পেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর “কবিতাবিতান” কাব্যগ্রন্থের জন্য তাকে এই পুরস্কারে সম্মানিত করা হয়। এই পুরস্কার দেওয়া হয় রাজ্যের তথ্য ও সংস্কৃতি দপ্তর এর তরফ থেকে। মুখ্যমন্ত্রী সাহিত্য একাডেমী পুরস্কার পাওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন মহল থেকে উঠে এসেছে কটাক্ষের সুর। এবার সেই সুরে যোগদান করলেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র।

- Advertisement -

এ দিন সকালে কবি মমতার লেখা কবিতা পাঠ করলেন তিনি।ভিডিওর শুরুতে শ্রীলেখাকে বলতে শোনা যায়,”কে বলে বাঙালি শুধুই রবীন্দ্রনাথের লেখা পড়ে, এই তো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলা একাডেমি পুরস্কারে পুরস্কৃত হলেন তার নিরলস সাহিত্যচর্চা ও সাধনার জন্য।”

সেই ভিডিওতে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুটো কবিতা পাঠ করেন প্রথমে শ্রীলেখা পড়লেন “এপাং ওপাং ঝপাং”। কবিতা শেষে তিনি জানান,”এ কবিতার গুঢ় অর্থ আছে নিশ্চয়ই। যাঁরা তাঁকে একাডেমি পুরস্কারে পুরস্কৃত করেছেন তাঁরা সুবিচার করেছেন।” আর তারপরই পড়লেন ‘হাম্বা’ । ‘হাম্বা’ শেষ করেই শ্রীলেখা বলেন ওঁর যে কত পশুপ্রেম আছে এই কবিতাটায় বোঝা যায়। আমিও তো পশুপ্রেমী।”

শ্রীলেখার এই ভিডিও পোস্ট এর সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হয় কমেন্ট ও লাইকসের ফোয়ারা। পোস্টে এক অনুরাগী কমেন্ট করেন, “আমি বাকরুদ্ধ! এত নোবেল পাওয়ার যোগ্য আমাকে একটু আগে ইয়েটস কল করেছিলেন, বললেন, ওপরে আলোচনা হচ্ছে।” আরেকজন লিখেছেন, “আমি খুব অনুপ্রাণিত হলাম এবার থেকে আমিও লিখবো কবিতা।” অপর আরেকটি অনুরাগী লিখেছেন, “রবি ঠাকুরের চুরি হয়ে যাওয়া নোবেলের দুঃখে বাঙালি খুব শীঘ্রই ভুলে যাবে কারণ বাংলায় আরেকটি নোবেল আসছে।”

সমগ্র পশ্চিমবঙ্গের মতো শ্রীলেখাও পিছিয়ে থাকলেন না মমতা ব্যানার্জিকে নিয়ে কটাক্ষ করতে। সকাল সকাল মজার খোশগল্প জুড়ে বসলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। অনেকের মতেই গুরু গম্ভীর ভাবে মুখ করে হাসাতে একমাত্র শ্রীলেখাই পারেন, তাঁর এই ট্যালেন্ট এর জন্য সাধুবাদ প্রাপ্য।

Leave A Reply

Your email address will not be published.