শুভেন্দু অধিকারী লোডশেডিংয়ের জেতা বিধায়ক: কুণাল ঘোষ

0 83

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ, ৫ মে: ২রা মে ছিল তৃণমূল কংগ্রেসের তৃতীয় বার ক্ষমতায় আসার বর্ষপূর্তি। আর এই দিনে নন্দীগ্রামে উপস্থিত হয়ে শুভেন্দু অধিকারী কে কটাক্ষ করেন তৃণমূল দলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ।

- Advertisement -

একসময়ের তৃণমূল কংগ্রেসের বিশ্বস্ত কর্মী তথা নেতা শুভেন্দু অধিকারী বর্তমানে বিজেপি দলের বিরোধী দলনেতা। ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে তৃণমূল জয়ী হলেও নন্দীগ্রামে বিজেপি দলের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর কাছে প্রায় দুই হাজারের মতো ভোটে পরাজিত হন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন এই প্রসঙ্গ টেনেই শুভেন্দু অধিকারী কে ‘লোডশেডিংয়ে জেতা বিধায়ক’ বলে কটাক্ষ করে কুনাল ঘোষ।

২০২১ এর বিধানসভা ভোটে সমগ্র বাংলায় একাধিপত্য বিস্তার করে তৃণমূল। কিন্তু নন্দীগ্রামে বিজেপি তৃণমূল লড়াইয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হেরে যান। গণনার দিন বিকেলে খবর আসে নন্দীগ্রামে শুভেন্দু অধিকারী কে পরাজিত করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এরপর নন্দীগ্রামের গণনা কেন্দ্রে হঠাৎই লোডশেডিং হয়ে যায় আর তার কিছুক্ষণ পরে সবাইকে চমকে দিয়ে নির্বাচন কমিশন জানান, নন্দীগ্রাম কেন্দ্র থেকে মমতা ব্যানার্জিকে পরাস্ত করেছে বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী মাত্র ২০০০ ভোটের ব্যবধানে।

কার্যত এমন ফলাফলে প্রচুর কটাক্ষ করা হয় নির্বাচন কমিশনকে আদালতে মামলাও করা হয় গণনা কেন্দ্রে কারচুপি প্রসঙ্গে যদিও বর্তমানে সেই মামলাটি এখনো চলছে। অবস্থায় তৃণমূলের বর্ষপূর্তিতে নন্দীগ্রামে হাজির হন কুনাল ঘোষ। আর শুভেন্দুকে লোডশেডিংয়ের জেতা বিধায়ক বলে তিনি স্পষ্ট করে দিতে চান সেই দিন লোডশেডিং হওয়ার কারণ হল ভোট গণনা কেন্দ্রে কারচুপি করা হয়েছিল আর সেই ভয়েই আদালতে শুনানির দিনে শুভেন্দু বাবু আদালতে হাজিরা দিচ্ছেন না।

Leave A Reply

Your email address will not be published.