শ্রাবণের শুক্লা অষ্টমী তিথিতে ময়না কাঠ পুজোর মধ্য দিয়ে সূচনা হলো ৫০০ বছর আগের কোচবিহারের রাজ আমলের বড় দেবীর পূজো

আজ থেকে প্রায় ৫০০ বছর আগে কোচবিহারের মহারাজা নর নারায়ণ এর আমলের এই পুজোর সূচনা হয়। কথিত রয়েছে মহারাজা নর নারায়ণ স্বপ্নে বড় দেবীকে দেখতে পান।

0 68

- Advertisement -

কোচবিহার, ৫ আগস্ট:- শ্রাবণের শুক্লা অষ্টমী তিথিতে বিশেষ ময়না কাঠ পুজোর মধ্য দিয়ে সূচনা হলো কোচবিহারের রাজ আমলের বড় দেবীর পূজা। কোচবিহারের ডাঙ্গরাই মন্দিরে আজ এই বিশেষ ময়না কাঠ পূজা অনুষ্ঠিত হয়।

আজ থেকে প্রায় ৫০০ বছর আগে কোচবিহারের মহারাজা নর নারায়ণ এর আমলের এই পুজোর সূচনা হয়। কথিত রয়েছে মহারাজা নর নারায়ণ স্বপ্নে বড় দেবীকে দেখতে পান। মহারাজা নর নারায়ণকে দেবী স্বপ্নে আদেশ দেন পূজা করার জন্য। তখন থেকেই কোচবিহারের দেবী বাড়িতে হয়ে আসছে বড় দেবীর পুজো।

- Advertisement -

বর্তমানে রাজা নেই । নেই রাজার রাজত্ব কিন্তু আজও শ্রদ্ধার সাথে পূজিত হয় বড় দেবী। এক সময় এই বড় দেবীর পুজো তে নরবলি প্রথা ছিল। কিন্তু বর্তমানে নর বলি না হলেও এখনো বিশেষ গুপ্ত পূজায় বড় দেবীকে নর রক্ত দেওয়ার প্রচলন রয়েছে। বংশ-পরম্পরায় কোচবিহারের একটি পরিবার সেই বিশেষ গুপ্ত পুজোয় হাতের আঙ্গুল কেটে নর রক্ত দিয়ে আসছে। আর দশটি দূর্গা পূজার সঙ্গে একেবারেই ভিন্ন নিয়মে পূজিত হয় কোচবিহারের বড় দেবী। শ্রাবণের শুক্লা অষ্টমী থেকে এই বড় দেবীর পূজার সূচনা হয়।

কোচবিহারের ভাঙ্গরাই মন্দিরে যূগছেদন এর মধ্য দিয়ে এই পুজোর সূচনা হয়। একটি ময়না গাছ কেটে সেটিকে মন্দিরে নিয়ে এসে সেই ময়না কাঠ টিকে মহাস্নান করানো হয় একই সঙ্গে বিশেষ পুজোর আয়োজন করা হয়। এই ময়না কাঠ দিয়েই তৈরি হয় বড় দেবীর প্রতিমার মেরুদন্ড। ডাঙ্গরাই মন্দিরে এই বিশেষ পুজোর পর সন্ধ্যায় সেই ময়না কাঠ নিয়ে যাওয়া হয় কোচবিহারের মদনমোহন মন্দিরে। সেখানে একমাস ধরে চলে বিশেষ পুজা। এই পুজোতে রয়েছে পায়রা বলির প্রচলন। কোচবিহার মদনমোহন মন্দিরে এক মাস এই ময়না কাঠের বিশেষ পুজোর পর কৃষ্ণা অষ্টমীতে বড় দেবীর মন্দিরে গৃহ পূজার আয়োজন করা হয়। এবং রাধা অষ্টমীতে এই ময়না কাঠ নিয়ে যাওয়া হয় বড় দেবীর মন্দিরে। সেখানেও ময়না কাঠের মহাস্নান এবং বিশেষ পুজো হয়। তিন দিন বড় দেবীর মন্দিরে এই ময়না কাঠ কে হাওয়া খাওয়ানোর প্রাচীন প্রথা রয়েছে। এরপর প্রতিমা শিল্পী ওই ময়না কাঠে দেবীর মূর্তি তৈরি করেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.