ইংরেজী ‘S’ দিয়ে যাদের নাম শুরু হয় তাদের ব্যক্তিত্ব কেমন!, কি কি গুণাবলী থাকে তাদের মধ্যে আসুন

0 174

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ, ৯মে:  এটি বিশ্বাস করা হয় যে ‘S’ অক্ষরটি ১ সংখ্যার সমান। যাদের নাম ‘S’ অক্ষর দিয়ে শুরু হয় তারা জন্মগতভাবে নেতা হন এবং জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করেন। যাদের নাম ‘S’ অক্ষর দিয়ে শুরু হয়, তাদের খুব অনুগত বলে মনে করা হয়। এগুলি কেবল রোমান্টিক নয়, খুব স্বাভাবিকও।

 

 

 

 

- Advertisement -

আপনার নাম ইংরাজি অক্ষরের যে বর্ণমালা দিয়ে শুরু হয়, তাতে আপনার স্বভাব বা চরিত্র সম্পর্কে ধারনা পাওয়া যায়। এক কথায় আমি কেমন ব্যক্তিত্বের সেই সম্পর্কে জানা যায়। নিউরোলজি শাস্ত্রে প্রত্যেকটি বর্ণের নির্দিষ্ট অর্থ রয়েছে। আপনার আশেপাশে যদি এমন কিছু মানুষ থেকে থাকেন যাদের নাম ‘S’ অক্ষর দিয়ে শুরু হয়, তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক বিশেষ মানুষের মধ্যে কী হয়, কেমন হয় এই ধরনের মানুষদের স্বভাব…..

 

 

 

সংখ্যাতত্ত্ব অনুসারে,আদ্যক্ষর ‘S’ দিয়ে যেসব জাতক-জাতিকার নাম শুরু হয় তারা অন্যের জীবন এবং ভাবধারার বিষয়ে সম্পূর্ণ জ্ঞান অর্জনে সক্ষম হতে পারেন। সবদিকে সমতা রেখে চলতে পছন্দ করেন। নিজের চেয়েও জনস্বার্থের দিকে বেশি দৃষ্টি থাকে। কিছু না কিছু বিষয়ে বা ব্যাপারে আদর্শ স্থানীয় হয়ে উঠতে পারেন। জীবনে যশ ও খ্যাতি পেয়ে থাকেন। তবে একবার যদি ভেঙে পরেন তাহলে ভীষণ দুঃখের আবর্তে পড়ে যান।

 

 

 

এটা বিশ্বাস করা হয় যে ‘S’ অক্ষরটি ১ সংখ্যার সমান। যাদের নাম ‘S’ অক্ষর দিয়ে শুরু হয় তারা জন্মগতভাবে নেতা হন এবং জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জন করেন। যাদের নাম ‘S’ অক্ষর দিয়ে শুরু হয়, তাদের খুব অনুগত বলে মনে করা হয়। এগুলি কেবল রোমান্টিক নয়, খুব স্বাভাবিকও। এগুলো ভুয়ো নয়। দামী উপহার দেওয়ার চেয়ে তাদের আচরণ এবং কাজের মাধ্যমে তাদের ভালবাসা প্রকাশ করে। তাঁরা আপনজনদের সুখে-দুঃখে সমানভাবে পাশে থাকে। তাঁরা তাঁদের অনুভূতি সবার সঙ্গে শেয়ার করে না। তাঁদের অনুভূতি অন্যদের কাছে ব্যাখ্যা করা খুব কঠিন, তাই তাঁরা অনুভূতিগুলি মনে রাখতে পছন্দ করে। তবে এই অভ্যাসের কারণে তাঁরা মাঝে মাঝে বিষণ্ণতার শিকার হয়।

 

 

 

 

‘S’ নামধারীরা প্রবল আকর্ষণীয়ই হন। যখন তাঁরা রেগে যান, তখন তাঁরা খুব আবেগপ্রবণ হয়ে পড়ে। তাঁরা মেজাজ হারিয়ে ফেলেন। এটা তাঁদের সবচেয়ে বড় দুর্বলতা। এ কারণে তাঁদের বোঝা মানুষের পক্ষে কঠিন। তাঁরা খুবই উদার। কাউকে সমস্যায় পড়লে তাঁরা সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে সাহায্য করতে ছুটে যায়। তাঁরা সৎ এবং অনুগত। তাঁরা কখনই তাঁদের বন্ধুদের ছেড়ে যায় না এবং কাউকে ঠকায় না। তাঁরা জীবনে অর্থের গুরুত্ব জানে এবং তাই তাঁরা সফল ব্যবসায়ী, রাজনীতিবিদ হয়ে ওঠে। তাঁরা নাম এবং অর্থ উভয়ই উপার্জন করে। তাঁরা সর্বদা নিজেদের জন্য উচ্চ লক্ষ্য নির্ধারণ করে এবং সেগুলি অর্জনের জন্য কঠোর পরিশ্রম করে। তবে, তাঁরা প্রায়শই কঠোর সংগ্রামের পরেই সাফল্য পায়। এই ধরনের লোকেরা নিজের চেয়ে অন্যের জন্য বেশি চিন্তা করে। এছাড়াও, তাঁদের মধ্যে অনেক আত্মবিশ্বাস রয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.