চলন্ত ট্রেনে হাত কেটে গেল শিশুর, রক্ষাকর্তা হিসেবে ছুটে এলেন কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব

0 70

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ,১২ মে: ট্রেনের জানালায় হাত কেটে যায় এক শিশুর। অসম্ভব যন্ত্রণা ও রক্তাক্ত হাত নিয়ে কাতরাতে থাকে সেই শিশুটি।সেই সময় উপস্থিত ট্রেনের প্যাসেঞ্জারদের বা শিশুটির পরিবারের কারোর কাছে কোন ফার্স্ট এড ছিল না। অবশেষে যন্ত্রণাকাতর শিশুটির দায়িত্ব তুলে নেয় ভারতীয় রেল। তবে এক্ষেত্রে জলপাইগুড়ি নিবাসী নবেন্দু মৌলিক এর কৃতিত্ব দাবি রাখে।

- Advertisement -

ভারতীয় রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের দ্রুত পদক্ষেপে বাচ্চাটির চিকিৎসা শুরু হয়। ঘটনাটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন নবেন্দু মৌলিক ।আর তারপর থেকেই ভারতীয় রেলের এমন উপকারী কর্মকাণ্ড কে ঘিরে প্রশংসায় মেতে উঠেছে নেটিজেনেরা।

নবেন্দু বাবু ফেসবুকে তাঁর পোস্টে জানান, “একটি কাজের জন্য হলদিবাড়ি এক্সপ্রেস এ করে জলপাইগুড়ি থেকে কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলাম।মাঝপথে কিষানগঞ্জ স্টেশন থেকে একটি পরিবার তাদের বাচ্চাকে নিয়ে আমাদের কামরায় ওঠে। এরপরই রামপুরহাট এর কাছে বাচ্চাটি কাঁদতে আরম্ভ করলে আমি লক্ষ্য করি, ট্রেনের জানালায় একটি কাঁচ হাতে পড়ে যাওয়ার কারণে বাচ্চাটি আঙ্গুলে চোট পায় এবং রক্তক্ষরণের কারণে যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকে সে।”

এরপর তিনি এবং বাচ্চাটির পরিবারের সকলে ফার্স্ট এড এর খোঁজ করতে শুরু করেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত ট্রেনের কোনো যাত্রীর কাছেই ফাস্ট এড ছিল না। কোন ভাবে সাহায্য না পেয়ে শেষ অবধি নবেন্দু বাবু রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব কে ট্যাগ করে পুরো ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়ে একটি টুইট করেন। আর এর কিছুক্ষণ পরেই রেলের তরফ থেকে নবেন্দুবাবু সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়।

ভারতীয় রেল সূত্রে জানা যায় পাওয়া মাত্রই রেলমন্ত্রী হাওড়া স্টেশনের ডি আর এম কে দ্রুত ঘটনাটি দেখতে বলেন। রেল মন্ত্রীর নির্দেশে রেলকর্মীরা বিষয়টি খতিয়ে দেখেন। বোলপুর স্টেশনে এক স্বাস্থ্যকর্মীকে নিয়ে বাচ্চাটির চিকিৎসাও করা হয় বলে জানানো হয়েছে। উক্ত সময়ে ২৫ মিনিট ধরে ট্রেন থামিয়ে শিশুটির চিকিৎসা চলে। এরপর চিকিৎসার ফলে বাচ্চাটি সুস্থ হয়ে কলকাতায় পৌঁছায়।

এরপর নবেন্দু বাবু আর একটি টুইট করে বলেন, ” আমরা বিভিন্ন সময়ে রেলের খারাপ পরিষেবা দেখে থাকি।এর সমাধানের কোন রাস্তাও খুঁজে পাওয়া যায় না। তবে আমার ট্যুইটের পর রেলমন্ত্রী যেভাবে আমার সাথে যোগাযোগ করে বাচ্চাটির চিকিৎসা দ্রুততার সঙ্গে সম্পন্ন করলেন, তা দেখে আমি আপ্লুত। ভালো কাজকে আমাদের ভালো বলতেই হবে।ধন্যবাদ ভারতীয় রেল, ধন্যবাদ মাননীয় রেলমন্ত্রী।”

Leave A Reply

Your email address will not be published.