মাদকাসক্ত হয়ে স্বামী সঞ্জয় তার বন্ধুদের সাথে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হতে চাপ দেন অভিনেত্রী করিশ্মা কাপুরকে!

একসময় অভিষেক বচ্চন ও করিশ্মা কাপুরের প্রেম ছিল সব থেকে চর্চিত বিষয়।

0 253

- Advertisement -

ওয়েব নিউজ,৪ এপ্রিল:- করিশ্মা কাপুর বলিউডে এক সময়ে একের পর এক হিট ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন। ৯০ এর দশকে করিশমা কাপুরের জনপ্রিয়তা ছিল তুঙ্গে। বলিউড অভিনেতা গোবিন্দ শাহরুখ খান সালমান খানের সাথে একের পর এক ছবিতে অভিনয় করেন তিনি

- Advertisement -

এরপরই অভিনেত্রী সঞ্জয় কাপুর কে বিয়ে করে বলিউড থেকে কিছুটা দূরে চলে যান। তবে তার দাম্পত্য জীবন সুখময় ছিল না। অভিনেত্রী অভিযোগ করেন তার সাথে বিয়ের পরও তার স্বামী প্রাক্তন স্ত্রীর সাথে শারীরিক সম্পর্কে লিপ্ত ছিলেন। এবং মাদকাসক্ত হয়ে সঞ্জয় তার বন্ধুদের সাথে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হতে কারিশমা কে চাপ দেন। সংসার টিকিয়ে রাখতে মুখ বুজে সব কিছু সহ্য করেছিলেন করিশমা!

এক সময় বলিউডে বচ্চন পরিবারের বউ হওয়া প্রায় নিশ্চিত হয়েছিল করিশ্মার। অভিষেক বচ্চন ও করিশ্মা কাপুরের প্রেম ছিল সব থেকে চর্চিত বিষয়। বয়সে অভিষেক ২ বছরের ছোট ছিলেন করিশ্মা থেকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বচ্চন ও কাপুর পরিবারের মাঝে ভুল বোঝাবুঝিতে ভেঙে যায় বিয়ে। আর ঠিক তার পরেই ২০০৩ সালে সঞ্জয় কাপুরকে বিয়ে করার সিধান্ত নেন করিশ্মা।

করিশ্মা সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, তাঁর বিয়ের পর সঞ্জয়ের সঙ্গে হানিমুনে গিয়েছিলেন। সেখানে গিয়ে সঞ্জয় নিজের স্ত্রীকে নিলামে তুলেছিলেন এক রাতের জন্য। নিজের বন্ধুদের মধ্যেই স্ত্রীকে নিয়ে দর কষে ছিলেন। এমনকি এখানেই শেষ নয় করিশ্মাকে জোড় করে সঞ্জয়ের বন্ধুর সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হতে বলেছিলেন। নায়িকা রাজি না হওয়ায় সেই সময়েই মার খেতে হয় স্বামীর হাতে। এর পরেও সেই সম্পর্ক টেনে নিয়ে যান করিশ্মা।

করিশ্মা আরও জানিয়েছেন, করিশ্মার সঙ্গে বিয়ের পরেও সঞ্জয়ের শারীরীক সম্পর্ক ছিল তাঁর প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে। তবে শুধু স্বামী নয়, শাশুড়িও মারধোর করতেন করিশ্মাকে। এমনকি করিশ্মা যখন প্রেগন্যান্ট সে সময়েও স্বামী এবং শাশুড়ি মিলে মারতেন নায়িকাকে। দীর্ঘ ১৩ বছর এই যন্ত্রণা সহ্য করার পর সন্তানদের কথা ভেবে, সম্পর্ক থেকে বেড়িয়ে আসেন তিনি। কিন্তু অভিষেক বচ্চনের সঙ্গে সেদিন যদি তাঁর বিয়েটা হয়ে যেত, তাহলে হয়তো আজ এমন খারাপ সময় দেখতে হত না নায়িকাকে।

শ্বশুরবাড়ি থেকে লাঞ্ছিত হওয়ার পর ২০১৩ সালে করিশ্মা ডিভোর্স ফাইল করেন সঞ্জয়ের বিরুদ্ধে। এখন তিনি তাঁর সন্তানদের নিয়ে বাবা-মায়ের কাছেই থাকেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.