গরম রুখতে গাড়িতে গাছ লাগানো পরামর্শ দিচ্ছেন পরিবেশ প্রেমী

0 35

- Advertisement -

মালদা,৫মে:  শুধু বাইরে বা বাগানে নয় গরম রুখতে এবং পর্যাপ্ত অক্সিজেন এর মাধ্যমে সতেজ থাকতে গাড়িতেও গাছ লাগানোর পরামর্শ দিচ্ছেন পরিবেশ প্রেমীরা। পাশাপাশি এসি বা কুলার মত কাজ করবে ঘরে এই বিশেষ গাছ। প্রখর রোদে জেলা তে উষ্ণতার পারদ ছুড়ে ফেলেছে প্রায় 40 থেকে 140 ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। গরম থেকে রক্ষা পেতে ইতিমধ্যেই স্কুল ছুটির নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। বিজ্ঞানীরা অনুমান করছে এভাবেই পৃথিবীর বাড়বে গড় উষ্ণতা। পরিবেশ দূষণের ফলে দূষিত হচ্ছে বাতাস। দিনে দিনে বাড়ছে সূর্যের রশ্মী পৃথিবীতে প্রখর ভাবে পরছে। পরিবেশকে বাঁচার কথা ভাবছে না একশ্রেণীর মানুষ। যারা প্রতিনিয়ত একের পর এক গাছ কেটে ফেলছেন। প্রকৃতি বিজ্ঞানীরা বলছেন বাইরের সর্বনাশ হয়ে গেছে এখন নিজেদের অক্সিজেন নিজেরা তৈরি করলে পৃথিবী হয়তো কিছুটা রক্ষা পেতে পারে। না কোন কৃত্রিম উপায়ে নয়

- Advertisement -

money plant, ড্রাকিলা, এরিকা পাম্প, বাম্বু পাম্প, ফিকাশ ,বেঞ্জামিনা, ছোট রবার গাছ, স্পাইডার প্ল্যান্ট, সাকুলেন্ট, বেলি, জেড প্ল্যান্ট, পিস লিলি, অ্যালোভেরা, তুলসী, স্নেক প্ল্যান্ট, গাছ আছে এই তালিকায় যা আপনার ঘরে রাখলে কার্বন ডাই অক্সাইড, নিথেন , ক্লোরোফ্লোরো , কার্বনের মতন বিষাক্ত গ্যাস কে শোষণ করে অক্সিজেনের মাত্রা বৃদ্ধি করবে। যার ফলে প্রাকৃতিক ভাবে ঘর থাকবে ঠান্ডা। এয়ার কুলার এসি আপনার ঘর ঠান্ডা করে তো বটেই তবে বিদ্যুৎ খরচের পাশাপাশি প্রকৃতির দিকে ফিরিয়ে দেয় কিছু বিষাক্ত গ্যাস যার ফলে প্রকৃতিতে গরমের প্রবণতা দিন দিন বেড়েই চলেছে।। তাই প্রাকৃতিক উপায়ে উপায় ঘরকে ঠাণ্ডা রাখবে এইসব গাছ খুব প্রয়োজনীয়। এইসব গাছের উপর গবেষনা করে দেখা গিয়েছে ঘরের মধ্যে 10 ডিগ্রি তাপমাত্রা কমাতে সক্ষম এরা। এই বিষয়ে ইংরেজবাজার শহরের মালঞ্চ পল্লী বাসিন্দা গাছ প্রেমী পেশায় স্কুল শিক্ষিকা মধুছন্দা মন্ডল জানান বর্তমানে মালদা জেলাতে যে দিনে দিনে তাপমাত্রা বাড়ছে তাতে আমাদের চরম অসস্তির মধ্যেই থাকতে হচ্ছে। পরিবেশকে রক্ষা করা আমাদের সকলের দায়িত্ব। গাছ যেমন আমাদের অক্সিজেন দিতে সাহায্য করে তেমনি পরিবেশকেও শীতল করতে সাহায্য করে। বেশি পরিমাণে ইনডোর প্ল্যান্ট অর্থাৎ বাড়িতে কাজ লাগান। এই সমস্ত গাছ বাড়িতে প্রচুর পরিমাণে অক্সিজেন দিতে সাহায্য করে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.